South Sikkim: ঘরে বসে ক্লান্ত হচ্ছেন? পাহাড়ের বসন্ত গায়ে মেখে নিন বোরংয়ে

By | April 2, 2022


বোরং

Image Credit source: Flickr

যত দিন যাচ্ছে উত্তরবঙ্গ, দার্জিলিং এবং সিকিমের আনাচে-কানাচে লুকিয়ে থাকা সুন্দর পাহাড়ি গ্রামগুলো হয়ে উঠছে ‘অফবিট ডেস্টিনেশন’ (Offbeat Destination)। পাহাড়ের কোলে, নদীর ধারে এমন নির্জন পরিবেশের খোঁজে তো ভ্রমণপিপাসুরা মুখিয়ে থাকে। আগে দক্ষিণ সিকিম (South Sikkim) বেড়াতে গেলে তালিকায় থাকত পেলিং, রাবাংলা ইত্যাদি। এখন ওই তালিকায় যুক্ত হয়েছে আরেকটি নাম- বোরং। পাহাড়ের বসন্ত একদম অন্যরকম হয়। আর সিকিম বসন্ত মানেই লাল টুকটুকে রডোড্রেনডন। আর সেখানেই সবুজে মোরা ছোট্ট পাহাড়ি হ্যামলেট হল এই বোরং (Borong)। পাহাড়ের বসন্ত গায়ে মেখে নিতে পারবেন এই পাহাড়ি নির্জন গ্রামে বসে।

দক্ষিণ সিকিমের জনপ্রিয় ভ্রমণ স্থান রাবাংলা। যদিও রাবাংলাও এক সময় পর্যটকদের কাছে ‘অফবিট’ ছিল। এখন তা আর না থাকলেও এখানে পর্যটকদের ভিড় কমেনি, বরং বেড়েছে। যদি সিকিম গিয়ে রাবাংলায় এক রাত থাকার প্ল্যান করেন, তাহলে প্ল্যানে একটু পরিবর্তন করুন। এর বদলে রাত কাটাতে চলে আসুন বোরংয়ে। রাবাংলা থেকে মাত্র ১৭ কিলোমিটারের পথ বোরং। ৫৮০০ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত বোরং। সুতরাং হিমালয়ে বসন্ত থাকলেও এখানে খুব একটা গরম লাগার কোনও জায়গা নেই।

শহরের কোলাহল, দূষণ এসব থেকেও মুক্তি মিলবে বোরংয়ে। তবে নির্জনতা এখানে নেই। কারণ ভোর থেকে আপনার কানকে ব্যস্ত রাখবে নাম না জানা বহু পাখির দল। এক কথায় বললে এই বোরং হল পক্ষীপ্রেমীদের স্বর্গরাজ্য। বোরংয়ের ভোরের দৃশ্য আপনার মন কেড়ে নিতে বাধ্য। হোমস্টের বারান্দায় বেরোলেই ধরা দেবে তুষারাবৃত মাউন্ট নরসিং। তার সঙ্গে কাঞ্চনজঙ্ঘার দৃশ্য ফ্রি। তখন থেকেই শুরু হবে পাখিদের কলরব। প্রায় ১৫০ প্রজাতির হিমালয়ান পাখির বাস এই বোরংয়ে।

এরপর বেলা যত বাড়বে মিঠে রোদ এসে ছুঁয়ে যাবে আপনাকে। সোনালি রোদের এই লুকোচুরি আপনি হোমস্টেতে বসেও উপভোগ করতে পারেন। আর যদি ইচ্ছা যায়, পা হেঁটেই ঘুরে দেখতে পারেন বোরং। সিলভার ফলস, টাইটানিক ভিউ পয়েন্ট, ঝুলন্ত ব্রিজের মত জায়গা রয়েছে যা বোরং থেকে আপনি ঘুরে দেখতে পারেন। সিলভার জলপ্রপাতের স্বচ্ছ জল, ঝুলন্ত ব্রিজের স্নিগ্ধ মায়াবী রূপ আপনার মেজাজকেই পরিবর্তন করে দেবে। আরেকটু হেঁটে নিচে নামলেই পাবেন নদী, আর তারপরেই রয়েছে চা-চু হট স্প্রিং।

এক গ্রাম থেকে অন্য গ্রামে হেঁটে চলে যাওয়ার সুযোগও রয়েছে এখানে। পাশেই রয়েছে ফ্যামটম গ্রাম। সেখানে গেলে এলাচ চাষ দেখতে পাবেন। আর চাইলে এখান থেকে রাবাংলা ও মনেস্ট্রিও ঘুরে আসতে পারেন। আর সবচেয়ে মজার বিষয় হল, বোরং গাছগাছালি। এখানে বিভিন্ন ধরনের ঔষধি গাছ পাওয়া যায়। পাহাড়, ঝর্ণা, নদী, গাছপালা, পশুপাখি- সব কিছুর মিলিত প্যাকেজ পাবেন এই বোরংয়ে।

কীভাবে যাবেন, কোথায় থাকবেন-

নিউ জলপাইগুড়ি পৌঁছে ওখান থেকে একটি গাড়ি ভাড়া করে পৌঁছে যান বোরংয়ে। নিউ জলপাইগুড়ি থেকে বোরংয়ের দূরত্ব ১৪০ কিলোমিটার। গাড়িতে সময় লাগবে প্রায় ৬ ঘণ্টা। আর খরচ ৫০০০/- থেকে ৬০০০/- টাকা। আপনি চাইলে গ্যাংটক ঘুরে, রাবাংলা হয়েও যেতে পারেন বোরং। বোরং হাতে গোনা কয়েকটি হোমস্টে রয়েছে। খরচ জনপ্রতি ১৩০০/- থেকে ১৫০০/- টাকা।

আরও পড়ুন: বসন্তে এই সুন্দর রডোডেনড্রনের দেশে চলে যান একাই! সময় লাগবে মাত্র কয়েক ঘণ্টা

আরও পড়ুন: হাতে মাত্র দু’ দিনের ছুটি? ঘুরে আসুন পাহাড়ি গ্রাম মালদিরাম



Source link