Life Threat to MLA: লাগাতার তোলাবাজদের ‘হুমকি’, প্রাণহানির আশঙ্কায় পুলিশ সুপারকে চিঠি লিখলেন বিধায়ক

By | April 28, 2022


বাসন্তী : তিনজন দেহরক্ষী থাকা সত্ত্বেও প্রাণসংশয়ে ভুগছেন তিনি। তাই আরও অন্তত একজন দেহরক্ষীর সংখ্যা বাড়ানোর জন্য বুধবার পুলিশ সুপারের কাছে আবেদন জানালেন বাসন্তীর বিধায়ক তথা রাজ্য়ের প্রাক্তন মন্ত্রী শ্যামল মণ্ডল। সেই আবেদনে তিনি জানিয়েছেন, প্রাণ সংশয়ের আশঙ্কা রয়েছে তাঁর। বিষয়টি জরুরি ভিত্তিতে দেখার জন্য আবেদন জানিয়েছেন তিনি। পুলিশ সুপারের সঙ্গে কথাও বলেছেন এ ব্যাপারে। আর এবারই প্রথম নয়, আগেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে এই আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

শ্যামল মণ্ডলের দাবি, বাসন্তী, ক্যানিং সহ আশপাশের বেশ কয়েকটি বিধানসভা এলাকায় সরকারি কাজ ও সংগঠনের কাজের জন্য ঘুরে বেড়াতে হয় তাঁকে। তাঁর দাবি, যখনই অন্যায় দেখেন, তখনই সেই কাজের প্রতিবাদ করেন তিনি। আর তার জেরেই নানা ধরনের হুমকি পাচ্ছেন বিধায়ক। তিনি আরও জানান, কিছু তোলাবাজ, মাটি মাফিয়া, দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই পুলিশ প্রশাসনের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন তিনি। অনেক জায়গায় পুলিশ ব্যবস্থা গ্রহণও করেছে। আর সেই কারণে নানা জায়গায় হুমকি পাচ্ছেন বলে অভিযোগ বিধায়কের। পেশীশক্তির সম্মুখীন হতে হচ্ছে তাঁকে। আর এতেই নিরাপত্তার অভাব বোধ করছেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী।

সম্প্রতি বাসন্তীর ফুলমালঞ্চ গ্রাম পঞ্চায়েতের সর্দার পাড়ায় বোমা বিস্ফোরণে একজনের মৃত্যু হয়। সেই ঘটনার পর বাসন্তীবাসীর কাছে শ্যামল মণ্ডল আবেদন করেছিলেন যাতে বাসন্তীর মানুষ বোমা, বন্দুক ত্যাগ করেন। অস্ত্র পুলিশ প্রশাসনের কাছে তুলে দিয়ে বাসন্তীতে শান্তি ফেরান। কিন্তু তাঁর সেই আবেদনের পর প্রায় একমাস কেটে গেলেও এখনও পর্যন্ত কেউ নিজে থেকে থানায় অস্ত্র ফেরত দেয়নি বলে দাবি বিধায়কের।

বিধায়ক অভিযোগ করেন, কিছু তোলাবাজ, মাটি মাফিয়ারা নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য বাসন্তী, ভাঙড়, ক্যানিং-এ অসামাজিক কাজকর্ম করছে। এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসনকেও জানিয়েছেন তিনি। আর বারবার পরোক্ষে হুমকি পাওয়ায় বৃহস্পতিবার সকালেই জেলা পুলিশ সুপারের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। বারুইপুর পুলিশ জেলার সুপারের সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। পুলিশ তাঁকে নিরাপত্তার আশ্বাস দিয়েছে। এরপরই তিনি লিখিত আবেদন জানিয়েছেন।

এ দিকে, বাসন্তীর বিজেপি নেতা বিকাশ সরদারের দাবি, তৃণমূলই ক্ষমতা দখলের লড়াইতে নেমেছে। ‘খেলা হবে’ দিবসের নামে এলাকায় ত্রাস ছড়িয়েছে। আর সেই ‘খেলা’র বল যে নিজেদের কোর্টে চলে আসবে সেটা বিধায়ক ভাবেননি, এমনটাই বলছেন বিজেপি নেতা। তাঁর পাল্টা দাবি, আদতে তৃণমূলের মদতেই বাসন্তী জুড়ে তাণ্ডব চালাচ্ছে দুষ্কৃতীরা। মানুষ আতঙ্কে ঘুমতে পারছে না বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন : Saltlake Clash: সল্টলেকে ধুন্ধুমার, গৃহ প্রবেশের পুজো চলাকালীন ভাঙচুর, শ্লীলতাহানির অভিযোগ



Source link