Kasba Clash: কসবায় কাউন্সিলর ‘অনুগামী’র বাড়িতে ইট-বৃষ্টি, নেপথ্যে কি শাসকের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব?

By | June 4, 2022


কসবায় দুষ্কৃতীদের তাণ্ডব

Kasba: শনিবার সকালেও দুষ্কৃতীদের তাণ্ডবের চিহ্ন স্পষ্ট। ফ্ল্যাটের জানালার কাচ ভেঙে চুরমার হয়ে গিয়েছে। একটি স্কুটারেও ভাঙচুর চালানো হয় বলেও অভিযোগ।

কসবা : ফের উত্তেজনা কসবায়। ১০৭ নম্বর ওয়ার্ডে দুষ্কৃতীদের তাণ্ডব। শুক্রবার রাতে এলাকার একটি ফ্ল্যাটে ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ। পরিস্থিতি সামাল দিতে রাতেই এলাকায় মোতায়েন করা হয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। অভিযোগ, শুক্রবার রাতে প্রায় ১২-১৫ জন দুষ্কৃতী বাইক নিয়ে এসে হামলা চালায় এলাকায়। অভিযোগ দুষ্কৃতীরা এলাকার প্রাক্তন কাউন্সিলর সুশান্ত ঘোষের অনুগামী। তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরেই এই তাণ্ডব বলে অভিযোগ তুলেছেন আক্রান্ত পরিবার। দোতলার একটি ফ্ল্যাট লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল, কাচের বোতল ছোড়ার অভিযোগ উঠেছে। ওই ফ্ল্যাটটি বাপি দেবের। এলাকায় তৃণমূল সমর্থক হিসেবেই পরিচিত তিনি। শনিবার সকালেও দুষ্কৃতীদের তাণ্ডবের চিহ্ন স্পষ্ট। ফ্ল্যাটের জানালার কাচ ভেঙে চুরমার হয়ে গিয়েছে। একটি স্কুটারেও ভাঙচুর চালানো হয় বলেও অভিযোগ।

শুক্রবার রাতের এই তাণ্ডবের ঘটনায় রীতিমত আতঙ্কিত বাপি দেব ও তাঁর পরিবার। বাপি দেবও নিজেকে তৃণমূল সমর্থক হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন। ওই ব্যক্তির বক্তব্য, তাঁরা এলাকার কাউন্সিলর লিপিকা মান্না এবং বিধায়ক জাভেদ খানের ঘনিষ্ঠ হওয়ার কারণেই তাঁর পরিবারের উপরে বারবার হামলা চালানো হচ্ছে। ঘটনায় তাঁরা অভিযোগ তুলেছেন এলাকার প্রাক্তন কাউন্সিলর এবং তাঁর অনুগামীদের বিরুদ্ধে।

এদিকে গতরাতের ঘটনার একটি সিসিটিভি ফুটেজও প্রকাশ্যে এসেছে। তাতে দেখা গিয়েছে, ফ্ল্যাটের বাইরে বেশ কয়েকজন দুষ্কৃতী জড়ো হয়ে রীতিমতো তাণ্ডব চালিয়েছে। বাড়ি লক্ষ্য করে ইট-পাথর ছোড়ার ঘটনাও দেখা গিয়েছে সিসিটিভি ফুটেজে।

এই বিষয়ে লিপিকা মান্না জানিয়েছেন, “কেন ঘটল বিষয়টি, তা আমি বলতে পারছি না। কিন্তু কী ঘটেছে, তা আমি নিজের চোখে দেখে এসেছি। ইট, পাথর, বোতল ছুড়ে বাড়ির কাচ তছনছ করে দিয়েছে। বেডরুমের অবস্থা খুবই খারাপ হয়ে গিয়েছে। বাড়ির মহিলা খুব কান্নাকাটি করছিলেন। তাঁরা আমাকে ফোন করেন। আমি পুলিশকে জানাই। সেখানে আমার সঙ্গে পুলিশও গিয়েছিল। যা হয়েছে, তা ঠিক হয়নি। কিন্তু কী কারণে এমন ঘটল, তা পুলিশই বলতে পারবে। ভিডিয়ো ক্লিপটা দেখেছি। একজন নয়, অনেকজন ছিল সেখানে। কিন্তু আমি তাদের কাউকে চিনি না। পুলিশ প্রশাসনকে বলব বিষয়টি যেন আর একটু ভাল করে দেখা হয়।”

এই খবরটিও পড়ুন



বাপি দেব যে তাঁর অনুগামী, তা একপ্রকার স্বীকার করে নিয়েছেন ১০৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর। বলেন, “সেই কারণেই তো আমি ওখানে গিয়েছিলাম। আমার সঙ্গে যে থাকবে, বা যে থাকবে না… সে যে কেউ হোক, একজন কাউন্সিলর হিসেবে আমাকে প্রত্যেক মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে।” যদিও এই বিষয়টির সঙ্গে তাঁর কোনও যোগ নেই বলেই দাবি করেছেন ১০৭ নম্বর প্রাক্তন কাউন্সিলর তথা বর্তমানে ১০৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সুশান্ত ঘোষ। যে ব্যক্তির বাড়িতে হামলার অভিযোগ উঠেছে, তাঁর বিরুদ্ধে কসবা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন সুশান্ত বাবু। প্রাক্তন কাউন্সিলরের বক্তব্য, এইসব অভিযোগ ভিত্তিহীন। বার বার তাঁর নাম ব্যবহার করে তাঁকে বদনাম করার চেষ্টা করা হচ্ছে। এই অভিযোগেই থানায় অভিযোগ জানিয়েছেন তিনি। প্রাক্তন কাউন্সিলরের পাল্টা দাবি, এলাকায় বিভিন্ন অসামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত ওই বাপি দেব। বাপির বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছিল বলেও দাবি সুশান্ত বাবুর। সেই থেকেই এই হামলা হয়ে থাকতে পারে বলে মনে করছেন তিনি। তবে কে বা কারা এই হামলা চালিয়েছে, তার যথাযথ তদন্তের দাবি জানিয়েছেন প্রাক্তন কাউন্সিলর।



Source link