Duare Sarkar Camp: ক্যাম্পে মাছি তাড়াচ্ছেন কর্মীরা, দুয়ারে সরকার প্রকল্পের এ কী অবস্থা!

By | May 26, 2022


দুয়ারে সরকার ক্যাম্প

Duare Sarkar: শুরুর সময় গ্রামের পাশাপাশি শহরের ক্যাম্প গুলিতেও করোনা সংক্রমণের ভয়কে উপেক্ষা করে উপচে পড়া ভিড় লক্ষ করা গিয়েছিল। কিন্তু এবার একেবারে উলটো চিত্র। ক্যাম্প কার্যত ফাঁকা।

জলপাইগুড়ি: প্রচারের অভাব। পরিষেবা নেওয়ারই লোক নেই। দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে বসে কার্যত মাছি তাড়াচ্ছেন কর্মীরা। জলপাইগুড়ি পৌর এলাকার ফণীন্দ্রদেব বিদ্যালয়ে গিয়ে ধরা পড়ল সেই ছবি। সরকারি বিভিন্ন প্রকল্পের সুবিধা মানুষের দুয়ারে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাস থেকে প্রতিটি জেলার ব্লকে ব্লকে দুয়ারে সরকার প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। এরপর বেশ কয়েক দফায় আরও দুয়ারে সরকার ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয় ব্লকগুলিতে।

শুরুর সময় গ্রামের পাশাপাশি শহরের ক্যাম্পগুলিতেও করোনা সংক্রমণের ভয়কে উপেক্ষা করে উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গিয়েছিল। কিন্তু এবার একেবারে উলটো চিত্র। ক্যাম্প কার্যত ফাঁকা।

গত ২১ মে তারিখ থেকে জলপাইগুড়ি পৌর এলাকার বাসিন্দাদের জন্য শহরের প্রাণকেন্দ্র ফণীন্দ্রদেব বিদ্যালয়ে শুরু হয়েছে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প। কিন্তু সেই ক্যাম্পে লক্ষ্য করা যাচ্ছে,  প্রথম দিন থেকেই তেমনভাবে লোক আসছেন না এই পরিষেবা নিতে। কিন্তু কেন? খোঁজ নিয়ে জানা গেল, ক্যাম্প শুরু হয়েছে জানেনই না এলাকার মানুষ। তাই এর পেছনে প্রচারের অভাবকেই দায়ী করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

স্থানীয় বাসিন্দা দেবদুলাল বিশ্বাস জানালেন, তিনি ক্যাম্পে এসেছিলেন রেশন কার্ড সংক্রান্ত সমস্যা নিয়ে। ক্যাম্প একেবারে ফাঁকা। অন্য আরেক বাসিন্দা রণজিৎ রায় জানান, ক্যাম্প শুরু হয়েছে তা জানাই ছিল না তাঁর। আগে ক্যাম্প শুরু হলে প্রচুর মাইকিং করা হত। এমনকি বাড়ি বাড়ি ঘুরেও বলা হত। এখন আর হয় না।

Duare Sarkar2

ক্যাম্প কর্মী সুষ্মিতা সরকারের বক্তব্য, “বেশ কিছু ক্যাম্প হয়ে গিয়েছে। বেশিরভাগ মানুষ তাঁর প্রয়োজনীয় কাজ করিয়ে নিয়েছেন। যাঁরা এখনও কাজগুলি করাননি, তাঁরা এখন আসছেন।”

এই খবরটিও পড়ুন



ঘটনায় জলপাইগুড়ি জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বসু জানিয়েছেন, তিনি জেলার বিভিন্ন ক্যাম্পগুলিতে ঘুরেছেন। সেখানকার ক্যাম্পগুলিতে যথেষ্ট ভিড় রয়েছে। পৌরসভার ক্যাম্পের জন্য তিনি আরও বেশি করে প্রচার চালাবার জন্য পৌর কর্তৃপক্ষকে জানাবেন বলে জানিয়েছেন।



Source link