স্বচ্ছতার সাথে রাজ্যে মানুষের মৌলিক পরিষেবাগুলি রূপায়িত হচ্ছে : মুখ্যমন্ত্রী

By | December 2, 2022


নিজস্ব প্রতিনিধি, আগরতলা, ২ ডিসেম্বর৷৷  স্বচ্ছতার সাথে রাজ্যে সরকারি বিভিন্ন প্রকল্প ও পরিষেবার সুুযোগ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে৷ এই কাজে সরকার দলমত নির্বিশেষে সকল অংশের মানুষের কল্যাণে কাজ করছে৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সবকা সাথ সবকা বিকাশের নীতিতে সরকার কাজ করছে৷ আজ উত্তর ত্রিপুরার জেলা সদর ধর্মনগরের বটরশিতে প্রস্তাবিত জেলাশাসক ও সমাহর্তার নতুন কার্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন, পেভার ব্লক সড়ক, বিএডিপি প্রকল্প, জেলাভিত্তিক প্রতি ঘরে সুুশাসন মেলা ও লাভার্থী সম্মেলনের উদ্বোধন করে মুখ্যমন্ত্রী প্রফেসর (ডা.) মানিক সাহা একথা বলেন৷ অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, প্রতি ঘরে সুুশাসন অভিযানে কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারের সমস্ত প্রকল্প ও পরিষেবাগুলি মানুষের কাছে দ্রততার সাথে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে৷ উল্লেখ্য, জেলাশাসক ও সমাহর্তা কার্যালয় নির্মাণে ব্যয় হবে ২৩ কোটি ৪৫ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা৷ জেলায় ৩৯টি বিএডিপি প্রকল্পে ব্যয় হবে ৯ কোটি ৪৭ লক্ষ টাকা৷ ১০২টি পেভার ব্লক ও সিসি রোডের দৈর্ঘ্য হচ্ছে ৫০.৬৮ কিমি৷
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ত্রিপুরা বিধানসভার উপাধ্যক্ষ বিশ্ববন্ধ সেন, বিধায়ক বিনয় ভূষণ দাস, বিধায়ক মলিনা দেবনাথ, ত্রিপুরা শিল্প উন্নয়ন নিগমের চেয়ারম্যান টিংকু রায় প্রমুখ৷ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উত্তর ত্রিপুরা জিলা পরিষদের সভাধিপতি ভবতোষ দাস৷ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উত্তর ত্রিপুরা জেলার জেলাশাসক ও সমাহর্তা নাগেশ কুমার বি৷ অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী প্রফেসর (ডা.) মানিক সাহা বলেন, গত ১৭ সেপ্ঢেম্বর থেকে রাজ্যে প্রতি ঘরে সুুশাসন অভিযানের সূচনা হয়েছিল৷ এই সময় থেকে শুরু হয়ে রাজ্যের প্রতিটি গ্রাম, ব্লক ও জেলাস্তরে সুুশাসন শিবির অনুষ্ঠিত হচ্ছে৷ এই অভিযান রাজ্যে আগামী ২৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে৷ তিনি বলেন, বর্তমান রাজ্য সরকার কেন্দ্রীয় সরকারের অ্যাক্ট ইস্ট পলিসিতে কাজ করে চলছে৷ রাজ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থায় ইতিমধ্যেই অনেক উন্নতি হয়েছে৷ বর্তমানে রাজ্যে ৬টি জাতীয় সড়কের কাজ একযোগে চলছে৷ তিনি জানান, কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের মূল জাতীয় সড়ক এন আইচ-৮-কে চার লাইন করার অনুমোদন দিয়েছে৷ রেল যোগাযোগের ক্ষেত্রেও রাজ্যে ব্যাপক উন্নতি হয়েছে৷
অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, রাজ্য সরকার মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে কাজ করছে৷ মানুষের সুুবিধার্থে রাজ্য সরকার ’আমার সরকার’ নামে একটি পোর্টাল চালু করেছে৷ যেখানে সাধারণ মানুষের সমস্ত সমস্যাগুলি সরাসরি জানাতে পারবেন৷ সরকার এই সমস্ত সমস্যা নিরসনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে৷ তিনি বলেন, রাজ্যে ইন্টারনেট পরিষেবার ক্ষেত্রেও উন্নতি হয়েছে৷ এই ইন্টারনেটকে কাজে লাগিয়ে রাজ্যের যুবকরা সারা পৃথিবীর সাথে অতি অল্প সময়ের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন করতে পারছে৷  
অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যে মহিলা ক্ষমতায়ন, স্বাস্থ্য পরিষেবার উন্নয়ন ও কৃষি ও কৃষি সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রের বিকাশে সরকারের গৃহীত পদক্ষেপগুলি তুলে ধরে বলেন, রাজ্যের জনগণের আর্থসামাজিক মান উন্নয়নের মাধ্যমে এক ত্রিপুরা শ্রেষ্ঠ ত্রিপুরা গড়ে তোলার লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে৷
উত্তর ত্রিপুরা জেলা সফরে এসে আজ দুপুরে মুখ্যমন্ত্রী প্রফেসর (ডা.) মানিক সাহা ধর্মনগর মহকুমার কদমতলা ব্লকে পিয়ারাছড়া টি-এস্টেট এলাকা পরিদর্শনে যান৷ সেখানে রাণীবাড়ি চা বাগানে বাগিচা শ্রমিকদের সাথে মতবিনিময়ে অংশ নেন৷ সেখানে তিনি চা শ্রমিকদের জন্য সরকারের গৃহীত প্রকল্পগুলির সুুযোগ সুুবিধা যথাযথভাবে পাচ্ছেন কিনা তার খোঁজ নেন৷ পরিদর্শনকালে মুখ্যমন্ত্রীর সাথে উপস্থিত ছিলেন টিআইডিসি’র চেয়ারম্যান টিংকু রায়, জেলাশাসক ও সমাহর্তা নাগেশ কুমার বি, জেলা পুলিশ সুুপার ড. কিরণ কুমার কে প্রমুখ৷



Source link