রাজনৈতিক মিছিলকে ঘিরে বিজেপি ও সিপিএমের সংঘর্ষে উত্তেজনা, পুলিশের লাঠিচার্জ, আহত একাধিক

By | November 23, 2022


আগরতলা, ২৩ নভেম্বর (হি. স.) : রাজনৈতিক মিছিলকে ঘিরে ত্রিপুরায় শাসক ও বিরোধী দলের কর্মীদের সংঘর্ষে খোয়াই মহকুমায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে। পুলিশের লাঠিচার্জে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হলেও, বিজেপি ও সিপিএমের বেশ কয়েকজন কর্মী আহত হয়েছেন।

সিপিএম রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য প্রাক্তন বিধায়ক পবিত্র কর দাবি করেন, ত্রিপুরায় পায়ের তলায় মাটি সরে গেছে, তাই বিজেপি সন্ত্রাসের পথ বেছে নিয়েছে। সুশাসনের রাজ্যে কুশাসন চলছে। পাল্টা বিজেপি সহ সভাপতি তথা খোয়াই জেলা প্রভারী অমিত রক্ষিতের বক্তব্য, মিছিলের নামে সিপিএম সন্ত্রাস করেছে। পূর্ব পরিকল্পিতভাবে বিজেপি কর্মীদের উপর মিছিল থেকে হামলা করা হয়েছে। কারণ, খোয়াই আসনে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে পরাজয় নিশ্চিত, সিপিএম তা বুঝে গেছে। তাই সন্ত্রাসকে হাতিয়ার করেছে, তোপ দাগেন তিনি।

খোয়াই জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অরিন্দম দাস জানিয়েছেন, খোয়াই শহর থেকে সিঙ্গিছড়া পর্যন্ত সিপিএমের মিছিল ছিল আজ। সিঙ্গিছড়া এলাকায় বিজেপির কর্মীরা দাঁড়ানো ছিল। সিপিএমের মিছিল সেখানে পৌছাতেই দুই দলের সংঘর্ষ বেঁধে যায়। তবে, পুলিশ পরিস্থিতি শক্ত হাতে মোকাবিলা করেছে। লাঠিচার্জ করে দুই দলের কর্মীদের সরানো হয়েছে। ওই ঘটনায় কয়েকজন আহত হয়েছেন। তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, আজ সিপিএমের খোয়াই মহকুমা কমিটির উদ্যোগে এক বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করা হয়েছিল। এ-বিষয়ে সিপিএম রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য প্রাক্তন বিধায়ক পবিত্র কর বলেন, বিভিন্ন সমস্যার প্রতিবাদে আজ খোয়াই মহকুমায় মিছিলের আয়োজন করা হয়েছিল। তাতে মানুষের স্বতষ্ফুর্ত অংশগ্রহণ লক্ষ্য করা গিয়েছে। তাতে, বিজেপির দুশ্চিন্তা বেড়ে গেছে। তাঁর দাবি, ত্রিপুরায় বিজেপির পায়ের তলায় মাটি সরে গেছে। তাই, বিরোধীদের আন্দোলন দমাতে সন্ত্রাসের পথ বেছে নিয়েছে। সুশাসনের রাজ্যে কুশাসন চলছে। তাঁর অভিযোগ, পুলিশের সামনেই বিজেপি কর্মীরা সিপিএমের মিছিলে হামলা করেছেন। তাঁর সাফ কথা, আত্মরক্ষার অধিকার সকলের রয়েছে। তাই, পাল্টা প্রতিরোধ গড়ে তোলা হয়েছিল।

এদিকে, বিজেপি প্রদেশ সহ সভাপতি তথা খোয়াই জেলা প্রভারী অমিত রক্ষিত সিপিএমের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের পাল্টা অভিযোগ এনেছেন। তাঁর দাবি, আগামী বিধানসভা নির্বাচনে খোয়াই আসনে পরাজয় নিশ্চিত, সিপিএম তা বুঝে গেছে। তাই, সন্ত্রাস সৃষ্টি করে ওই আসন দখলে রাখার মরিয়া চেষ্টা শুরু করেছে। তিনি বলেন, বাম জমানায় সন্ত্রাসের জন্য খ্যাত পবিত্র করের নেতৃত্বেই আজ বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা চালানো হয়েছে। মিছিল থেকে রড, লাঠি দিয়ে হামলা করা হয়েছে। তাতে, বিজেপি কর্মীরা গুরুতর আহত হয়েছেন।

খোয়াই জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অরিন্দম দাস জানিয়েছেন, দুই দলের সংঘর্ষের ঘটনায় সুয়োমুটু মামলা নেওয়া হয়েছে। তবে, এখনো পর্যন্ত বিজেপি কিংবা সিপিএমের পক্ষ থেকে কোন মামলা করা হয়নি। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সমস্ত ব্যবস্থা করেছে। 



Source link