বিজেপির বিরুদ্ধে মহাজোট নিয়ে ধোয়াশাই জিইয়ে রাখলেন প্রদ্যোত

By | January 16, 2023


আগরতলা, ১৬ জানুয়ারী(হি. স.) : বিজেপির বিরুদ্ধে মহাজোট নিয়ে ধোয়াশাই জিইয়ে রাখলেন তিপরা মথা সুপ্রিমো তথা এমডিসি প্রদ্যোত কিশোর দেববর্মণ। গ্রেটার তিপরাল্যান্ডের লিখিত প্রতিশ্রুতি চাই তাঁর। আবার জনজাতিদের ঐক্যবদ্ধ হোক, সেই ইচ্ছাও রয়েছে তাঁর। ফলে, বিজেপির বিরুদ্ধে আদৌ তিনি সিপিএম ও কংগ্রেসের সাথে আসন রফায় সামিল হবেন, সেই প্রশ্নের উত্তর এখনো মিলেনি। কারণ, বিজেপির বিরুদ্ধেও তিনি সুর চড়িয়েছেন। শারীরিক অসুস্থতা কাটিয়ে ত্রিপুরায় ফিরে আজ খুমুলুঙ-এ তিনি দলের মহিলা সংগঠনের জনসভায় অংশ নিয়েছেন। সেই সভা থেকে তিনি স্পষ্ট বার্তা দেওয়ার বদলে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলিকে বিভ্রান্তিতে ফেলেছেন।

এদিন তিনি বলেন, গ্রেটার তিপরাল্যান্ড নিয়ে কোন আপোষ নয়। ওই দাবির সাংবিধানিক সমাধানের প্রশ্নে লিখিত প্রতিশ্রুতি দিলে তবেই সমর্থনের বিষয়ে ভাববে তিপরা মথা। তাঁর দাবি, অনেক চাপে রয়েছি। তবুও, নির্বাচনের আগে জোটে গিয়ে জনজাতিদের বিক্রি হতে দেব না। তাঁর দাবি, জনজাতিদের ললিপপ দেখিয়ে ঐক্য ভাঙ্গার চেষ্টা হচ্ছে। কিন্তু, ওই অপচেষ্টা সফল হতে দেব না।

তিনি বলেন, অর্থ ও পদের লোভনীয় অফার নিয়ে তাঁর কাছে হাজির হচ্ছেন অনেকেই। কিন্তু, মৃত্যুর আগে মানুষের আশীর্বাদ চাই। অর্থ কিংবা পদের বিনিময়ে মানুষের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করতে পারব না। তিনি বলেন, ভগবান আপনাদের সাথে আছেন। তাই, আমি আপনাদের অধিকারের জন্য লড়াই চালিয়ে যাব।

বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনারা আগামী নির্বাচনের জন্য লড়াই করছেন। আমি আগামী প্রজন্মের জন্য লড়াই জারি রেখেছি। তাঁর কথায়, ত্রিপুরায় মহিলারা ধর্ষিতা হচ্ছেন। যুবকরা কাজ হারাচ্ছেন, অনেকে কাজের জন্য ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

তিনি বলেন, তিপরা মথার শক্তি অনেক বৃদ্ধি হয়েছে। কংগ্রেস কর্মীরা মার খাচ্ছেন। কিন্তু, জনজাতিদের মধ্যে ঐক্যের কারণে তিপরা মথার কর্মীদের উপর কেউ হামলা করার সাহস দেখাচ্ছেন না। তাঁর আবেদন, আমাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে লড়াই করতে হবে। তাঁর দাবি, সমস্ত জাতী এবং সম্প্রদায় ঐক্যবদ্ধ না হলে সব কিছু বরবাদ হয়ে যাবে। গণতন্ত্র ভীষণ বিপন্ন। তাই, গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষায় আমাদের ঝাপাতে হবে।আজ তিনি জনসভায় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে জনজাতিদের বার্তা দিয়েছেন। কিন্তু, নির্বাচনী রণনীতি খোলসা করেননি। ফলে, প্রদ্যোত আজ ঝেড়ে কাশলেন না কেন, রাজনৈতিক মহলে তা নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে।



Source link