প্রেমের টানে লুকিয়ে বাংলাদেশ পাড়ি, ১৬ মাস জেলে কাটিয়ে বাড়ি ফিরলেন নদিয়ার তরুণী

By | March 25, 2022


বিপ্লবচন্দ্র দত্ত, কৃষ্ণনগর: প্রেমের অমোঘ টান। সেই টানেই লুকিয়ে সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে (Bangladesh) ঢুকে পড়েছিলেন তরুণী। চোখে স্বপ্ন, প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করে তাঁর সঙ্গে জীবন কাটানো। কিন্তু নিমেষেই সেই স্বপ্ন ভেঙে চুরমার হয়ে গেল তাঁর। প্রেমিকের সঙ্গে দেখা হওয়া তো দূর অস্ত, বেআইনিভাবে ভিনদেশে প্রবেশের জন্য বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবি তরুণী আটক করে। তারপর জেলেই কাটাতে হল ১৬ মাস। পরে অবশ্য অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে ছাড়া পান তিনি। ফিরে আসেন নদিয়ার বাড়িতে। আর তারপর চোখের জলে ভেসে বলেন, আমার মতো ভুল যেন কেউ না করে।

নদিয়ার (Nadia) বগুলা শ্রীকৃষ্ণ কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী মনিরা খাতুন। উনিশ বছরের ছাত্রীর সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় আলাপ হয় বাংলাদেশের যুবকের। তৈরি হয় প্রেমের (Love) সম্পর্ক। তাঁর সঙ্গেই জীবন কাটাবেন বলে স্থির করেন মনিরা। আবেগের বশে পাসপোর্ট, ভিসা ছাড়া স্রেফ দালালচক্রের হাত ধরে কাঁটাতার পেরিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে গিয়েছিলেন তিনি। সম্পূর্ণ অচেনা জায়গায় গিয়ে হারিয়ে ফেলেছিলেন নিজেকে। প্রেমিকের জন্য অপেক্ষায় ছিলেন বাংলাদেশের সীমান্ত লাগোয়া একটি মেহগনি বাগানে। কিন্তু প্রেমিক তাঁর সঙ্গে দেখা করতে আসেননি। বরং বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবির হাতে ধরা পড়ে যান।

[আরও পড়ুন: মাংস কিনতে বাজারে মা ও বাবা, দু’বছরের শিশুকে ধর্ষণ করে খুন করল ট্রাকচালক মামা!]

এরপর বেআইনি অনুপ্রবেশের দায়ে বিজিবি তাকে পুলিশের কাছে পাঠায়। তারপর আদালত হয়ে জেলে ঠাঁই হয় ছাত্রীর। গরাদের পেছনে বসে তিনি ভাবতে থাকেন,কত বড় ভুল তিনি জীবনে করে ফেলেছেন।দীর্ঘদিন জেল খাটলেও যার সঙ্গে প্রেমের টানে সাড়া দিয়ে তিনি বাড়ি থেকে পালিয়ে সীমান্ত পেরিয়ে পৌঁছে গিয়েছিলেন ভিনদেশে, সেই প্রেমিক তার সঙ্গে জেলে একবারও দেখা পর্যন্ত করতে আসেননি। মনিরার ভুল আরও ভাঙতে থাকে। জেলে বসে ভাবতে থাকেন, আদৌ আর বাড়ি ফিরতে পারবেন কি? 

[আরও পড়ুন: নিহত আনিস খানের গ্রামে ঢোকার পথে বিক্ষোভের মুখে ফিরহাদ, উঠল ‘গো ব্যাক’ স্লোগান]

যদিও দীর্ঘ ১৬ মাস পর মনিরা খাতুনের জীবনে সুদিন ফিরে এল। জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর দীর্ঘ আইনি জটিলতার অবসান শেষে দু’দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী, পুলিশ এবং প্রশাসনের পদস্থ কর্তাদের উদ্যোগে মনিরা খাতুনকে বাংলাদেশ থেকে নিয়ে এসে ভারতে তাঁর বাবা-মায়ের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। নদিয়ার ধানতলা থানার চাঁদপুর গ্রামের নিজের বাড়িতে ফিরে এসেছেন মনিরা।

ঘরের মেয়েকে ঘরে ফিরে পেয়ে শুক্রবার তাই মনিরাদের পরিবারে ছিল খুশির পরিবেশ। মেয়েকে ফিরে পেয়ে মনিরার মায়ের চোখের কোন ভিজে গিয়েছিল। চোখ মুছে তিনি জানালেন, ”১৬ মাস আগে বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পর মেয়েকে আমরা চারিদিকে খোঁজাখুঁজি করেছি। কিন্তু তার কোন সন্ধান পাইনি। বাংলাদেশে চলে গিয়েছে কীনা, সন্দেহে বাংলাদেশের আমাদের দূর সম্পর্কের এক আত্মীয়ের মাধ্যমে খোঁজখবর চালানো হয়। প্রায় সাত মাস পর জানতে পারি, মেয়ে বাংলাদেশের জেলে আটকে রয়েছে। এরপর আমরা পুলিশ,প্রশাসন থেকে শুরু করে নবান্ন পর্যন্ত গিয়েছি। তারা ভীষণ সহযোগিতা করেছেন আমাদের। সম্পূর্ণ তাদের উদ্যোগেই আমি আমার মেয়েকে আবার ফেরত পেয়েছি। তাই আমি সবাইকে তার জন্য ধন্যবাদ জানাই।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ

নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে





Source link