প্রশান্ত কিশোর চাইছেনটা কী? কংগ্রেসে যোগের জল্পনার মধ্যেই কেসিআরের সঙ্গে দিনভর বৈঠক পিকে’র

By | April 24, 2022


Published by: Subhajit Mandal |    Posted: April 24, 2022 5:44 pm|    Updated: April 24, 2022 5:44 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তাঁর কংগ্রেসে (Congress) যোগদানের জল্পনা চরমে। রাজনৈতিক মহলের একটা অংশের ধারণা, প্রশান্তের হাতে হাত রাখা শুধু সময়ের অপেক্ষা। এরই মধ্যে নতুন কাণ্ড ঘটালেন ভোটকুশলী। শনিবার সকালে সটান তিনি চলে গেলেন তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের (KCR) বাসভবনে। শোনা যাচ্ছে কেসিআরের সঙ্গে শনিবার সকাল থেকে রাত পেরিয়ে রবিবার সকাল পর্যন্ত দফায় দফায় বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেছেন পিকে। কেসিআর-পিকের এই সাক্ষাৎ একাধিক প্রশ্নের জম্ন দিচ্ছে। প্রশ্ন উঠছে প্রশান্ত কিশোর চাইছেনটা কী?

শোনা যাচ্ছে, কংগ্রেসে যোগ দেওয়া নিয়ে দ্বিতীয় পর্বের আলোচনা শুরু করার আগেই কেসিআরকে সাহায্য করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রশান্ত। তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী নিজের মুখে সেকথা স্বীকারও করেছেন। কেসিআর বলেছেন, ২০২৪ সালে জাতীয় স্তরে বিকল্প তৈরি করতে কাজ করবেন তিনি। সেই কাজে সাহায্য করবেন তাঁর ‘দীর্ঘদিনের বন্ধু’ প্রশান্ত কিশোর (Prashant Kishor)। জানা গিয়েছে, ২০২৩ বিধানসভা এবং ২০২৪ লোকসভা নির্বাচনে জেতাতে কেসিআর পিকে’কে ৫০০ কোটি টাকার বাজেটও দিয়েছিলেন।

[আরও পড়ুন: ‘যোগী-মোদি দু’জনকেই জবাব দিতে হবে’, প্রয়াগরাজ হত্যাকাণ্ডের তথ্য অনুসন্ধানে গিয়ে হুঁশিয়ারি তৃণমূলের]

এসবের মধ্যেই আবার ভোটকুশলীর কংগ্রেসে যোগদানের জল্পনা চাঙ্গা হয়। দফায় দফায় কংগ্রেস শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। শোনা যাচ্ছে, কংগ্রেসকে পুনরুজ্জীবিত করার যেসব টোটকা দিয়েছেন, সেসব বেশ উপযোগী বলেই মনে করছে দেশের সবচেয়ে পুরনো পার্টি। রবিবারই সোনিয়া গান্ধী দলের শীর্ষনেতাদের নিয়ে বৈঠকে পিকে’কে নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন। তবে ভোটকুশলীকে দলে নেওয়ার আগে কংগ্রেস একটাই শর্ত দিয়েছেন। সেটা হল, হাত শিবিরে যোগ দিতে হলে অন্য সব দলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে তাঁকে।

[আরও পড়ুন: এবার দিল্লিতে বেআইনি মন্দির ভাঙার নোটিস কেন্দ্রের, ক্ষোভে ফুঁসে উঠল AAP]

কিন্তু কেসিআরের সঙ্গে দেখা করে সেই শর্ত কি লঙ্ঘন করে ফেললেন পিকে (PK)? সূত্রের দাবি, কংগ্রেস নেতাদের পিকে যে প্রেজেন্টেশন দিয়েছেন, তাতে তেলেঙ্গানায় কেসিআরের সঙ্গে জোটের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। কিন্তু ঘটনা হল তেলেঙ্গানায় কেসিআরই কংগ্রেসের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী। তাছাড়া, স্থানীয় কংগ্রেস নেতারা একেবারেই জোটের পক্ষে নন। তাহলে তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কী নিয়ে কথা বলতে গিয়েছেন প্রশান্ত কিশোর? তিনি কি কংগ্রেস এবং কেসিআর দু’দিকেই তাল দিতে চাইছেন? সেক্ষেত্রে পিকে কংগ্রেসে যোগ দিলেন আর তাঁর টিম আই-প্যাক কেসিআরের হয়ে কাজ করল, সেটাও হতে পারে। যদিও এই প্রস্তাবে কংগ্রেস বা কেসিআর কেউই রাজি হবেন না বলে মনে করা হচ্ছে। তাহলে কি কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার আগে চন্দ্রশেখর রাওয়ের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে চাইছেন পিকে? সেজন্যই এত আলোচনা? তা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ

নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে





Source link