পাবে পার্টির পর গাড়িতে তুলে নাবালিকা কিশোরীকে ‘গণধর্ষণ’, জুবিলি হিলসের ঘটনায় বিধায়ক পুত্রও জড়িত?

By | June 3, 2022


প্রতীকী চিত্র

Jubilee Hills: পুলিশ জানিয়েছে, বাড়ি যাওয়ার নাম করে অভিযুক্তরা কিশোরীকে নির্জন অন্ধকার জায়গায় নিয়ে যায়। সেখানেই অভিযুক্তরা পালা করে গণধর্ষণ করে তাকে।

হায়দরাবাদ: গেট টুগেদারের পার্টি করতে পাবে গিয়েছিলেন ১৭ বছরের এক কিশোরী। সেখান থেকে বাড়ি ফেরার পথে গাড়ির মধ্যে ওই নাবালিকাকে গণধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ। প্রথমে ধর্ষণের বিষয়টি জানায়নি ওই কিশোরী। প্রাথমিক ভাবে শ্লীলতাহানির মামলা দায়ের হয়েছিল। কিন্তু মেডিক্যাল পরীক্ষা করতে গিয়ে জানা যায় ধর্ষণ করা হয়েছে ওই কিশোরীকে। এর পর ভারতীয় দণ্ডবিধির বেশ কয়েকটি ধারা ও পকসো আইনে মামলা দায়ের করে পুলিশ। শনিবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে হায়দরাবাদের জুবিলি হিলস এলাকায়। তবে বুধবার এ নিয়ে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। তিন-চার জন যুবক ওই নাবালিকাকে গাড়ির মধ্যে গণধর্ষণ করেছিল বলে অভিযোগ। যদিও অভিযুক্তদের মধ্যে এক জনের পরিচয়ই পুলিশকে জানাতে পেরেছে নির্যাতিতা কিশোরী। অভিযুক্তদের মধ্যে তেলঙ্গানার এক বিধায়কের ছেলেও রয়েছে বলে জানা গিয়েছে পুলিশ সূত্রে।

শনিবার হায়দরাবাদের অভিজাত এলাকা জুবিলি হিলসের একটি পাবে পার্টি করতে গিয়েছিল ওই কিশোরী। সেখানেই তার সঙ্গে পরিচয় হয় অভিযুক্তদের। বাড়ি ফেরার সময় অভিযুক্তরা তাকে গাড়ি করে বাড়িতে নামিয়ে দেওয়ার প্রস্তাব দেয়। সেই মতো অভিযুক্তদের মার্সিডিস গাড়িতে ওঠে ১৭ বছরের কিশোরী। সেই গাড়িতে তিন-চার ছিল বলে পুলিশকে জানিয়েছে কিশোরী। পুলিশ জানিয়েছে, বাড়ি যাওয়ার নাম করে অভিযুক্তরা কিশোরীকে নির্জন অন্ধকার জায়গায় নিয়ে যায়। সেখানেই অভিযুক্তরা পালা করে গণধর্ষণ করে তাকে।

যদিও বাড়ি এসে ধর্ষণের কথা জানায়নি ওই কিশোরী। কিন্তু তার ঘাড়ে আঘাত দেখে সন্দেহ হয় তার পরিবারের লোকের। তখন নির্যাতিতা জানিয়েছিল, কয়েক জন যুবক পার্টির পর তাকে শ্লীলতাহানি করেছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই মামলা দায়ের করা হয়। এর পর নির্যাতিতার শারীরিক পরীক্ষা করানো হয়। ভরসা কেন্দ্রে মহিলা অফিসাররা জিজ্ঞাসাবাদ করে নির্যাতিতাকে। সে সময়ই গণধর্ষণের বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে। তার পরই ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ নম্বর ধারাও যোগ করা হয় এফআইআর-এ এবং অভিযুক্তদের চিহ্নিত করার কাজ শুরু করে।

এই খবরটিও পড়ুন



এর পরই তদন্তে নেমে পাবের কর্মীদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পাবের কর্মীরা জানিয়েছিলেন, ওই পার্টি নন-অ্যালকোহলিক ছিল। মদ সেখানে পরিবেশন করা হয়নি। পাব ও আশপাশ এলাকার সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজও খতিয়ে দেখা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এ ব্যাপারে পুলিশের এক তদন্তকারী অফিসার বলেছেন, সন্ধ্যায় ঘটেছে এই ঘটনা। তাই সিসিটিভি ফুটেজ দেখে খুব বিস্তারিত কিছু পাওয়া যায়নি। গণধর্ষণের ঘটনায় কোনও নাবালক যুক্ত আছে কি না, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।



Source link