চাপ বাড়াল আমেরিকা, পুতিনের দুই মেয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা চাপাল হোয়াইট হাউস

By | April 6, 2022


সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাশিয়ার (Russia) উপর চাপ আরও বাড়াল আমেরিকা। এবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন (Russia President Vladimir Putin) কন্যা এবং রাশিয়ার বৃহত্তম সরকারি এবং বেসরকারি দুই ব্যাংকের উপর নিষেধাজ্ঞা চাপাল ওয়াশিংটন। বুধবার হোয়াইট হাউসের তরফে এমনটাই জানানো হয়েছে। আমেরিকার (USA) এই পদক্ষেপের জেরে রাশিয়ার উপর আর্থিক চাপ আরও বাড়ল বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। একইসঙ্গে বিপাকে পড়ল রাশিয়ার উচ্চবিত্তরাও।

এদিন হোয়াইট হাউসের (White House) তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, রুশ প্রেসিডেন্টের প্রাক্তন স্ত্রী লিউদমিলা স্কেরেনেভা দুই কন্যাসন্তান মারিয়া ভরনোতসোভা এবং কাতেরিনা তিখনোভার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হল। শুধু তাঁরা নয়, নিষেধাজ্ঞা চাপানো হয়েছে রুশ বিদেশমন্ত্রী সের্গেই লাভরভের (Sergey Lavrov) স্ত্রী এবং মেয়ে, রাশিয়ার প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট এবং প্রধানমন্ত্রীর উপরও।

[আরও পড়ুন: ফি বকেয়া থাকলেও আটকানো যাবে না পড়ুয়াদের মার্কশিট, বেসরকারি স্কুলকে নির্দেশ হাই কোর্টের]

হোয়াইট হাউসের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “এঁরা প্রয় সকলেই রুশ জনতার টাকায় নিজেদের সমৃদ্ধ করেছে। এঁদের মধ্যে অনেকে আবার ইউক্রেনে (Ukraine) রুশ হামলাকে সমর্থন করছে। তাই এই নিষেধাজ্ঞা (Sanction) জারি করা হল।” আমেরিকার এক শীর্ষ কর্তার কথায়, “আমাদের ধারনা, রুশ প্রেসিডেন্টের সম্পত্তির অনেকটাই পরিবারের সদস্যদের নামে করা রয়েছে। তাঁরা বেনামে লেনদেন করে। তাই তাঁদের নিশানা করা হল এবার।”

অন্যদিকে রাশিয়ার বৃহত্তম সরকারি এবং বেসরকারি দুই ব্যাংক- বার ব্যাংক (Sberbank) এবং আলফা ব্যাংককেও (Alfa Bank) ‘ব্লক’ করেছে ওয়াশিংটন। পাশাপাশি, আপাতত রাশিয়াতে কোনওরকম মার্কিন বিনিয়োগ করা হবে না। প্রসঙ্গত, অন্যান্য রুশ সংস্থার উপরও নিষেধাজ্ঞা চাপাতে পারে।

[আরও পড়ুন: SSC নিয়োগ মামলা: FIR করল সিবিআই, প্রোগ্রাম অফিসারকেও হাজিরা দিতে হবে নিজাম প্যালেসে]

প্রসঙ্গত, রাশিয়া দাবি করেছে  ইউক্রেনে (Ukraine invasion) প্রথম পর্যায়ের সামরিক অভিযান প্রায় সমাপ্ত। এবার ডনবাস অঞ্চলকে সম্পূর্ণ স্বাধীন করার লক্ষ্যেই ঝাঁপাবে মস্কো (Moscow)। এই বিষয়ে রাশিয়ার (Russia Crisis) জেনারেল স্টাফের প্রধান সের্গেই রুডস্কোই জানান, প্রথম পর্যায়ের সামরিক অভিযান প্রায় শেষের দিকে। অধিকাংশ লক্ষ্যই পূরণ হয়েছে। এবার পরবর্তী লক্ষ্যের জন্য প্রস্তুতি শুরু হবে। রাশিয়ার এই রক্তক্ষয়ীর হানার (Russia-Ukraine War) বিরুদ্ধে সরাসরি যুদ্ধে না ঝাঁপালেও মস্কোর উপর লাগাতার অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা চাপাচ্ছে ওয়াশিংটন।  

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ

নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে





Source link