কলেজ ক্যাম্পাসে নমাজ পড়ার অভিযোগ, এক মাসের ছুুটিতে পাঠানো হল অধ্যাপককে

By | June 1, 2022


Published by: Kishore Ghosh |    Posted: June 1, 2022 6:02 pm|    Updated: June 1, 2022 6:02 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার কলেজ চত্বরে এক অধ্যাপক নমাজ (Namaz) পড়ায় বিতর্কের ঢেউ। ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) আলিগড়ের একটি কলেজের। সম্প্রতি একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। সেখানে দেখা গিয়েছে, অভিযুক্ত অধ্যাপক কলেজের মাঠে নমাজ পড়ছেন। এই ঘটনায় হিন্দুত্ববাদী যুব সংগঠন অধ্যাপকের বিরুদ্ধে শাস্তির দাবি তুলেছে। তাদের অভিযোগ, শিক্ষাঙ্গনের শান্তিভঙ্গের চেষ্টা করেছেন ওই অধ্যাপক। বিতর্ক সামাল দিতে আপাতত অধ্যাপককে ছুটিতে পাঠিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। এই ঘটনায় স্থানীয় থানাতেও অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটে আলিগড়ের শ্রী ভার্শনে কলেজর (Sri Varshney College)। অভিযুক্ত অধ্যাপকের নাম এসআর খালিদ (S R Khalid)। ভাইরাল ভিডিওটিতে দেখা গিয়েছে, অধ্যাপক খালিদ কলেজ ক্যাম্পাসের উদ্যানে নমাজ পড়ছেন। এরপরই হিন্দুত্ববাদী যুব সংগঠন ভারতীয় জনতা যুব মোর্চা (Bhartiya Janata Yuwa Morcha) অধ্যাপকের শাস্তির দাবি তোলে। তাদের বক্তব্য, কলেজে ধর্মীয় আচার পালনের জায়গা না। এখানে নমাজ পড়ে শিক্ষালয়ের শান্তিপূর্ণ আবহাওয়া নষ্ট করার চেষ্টা করেছেন ওই অধ্যাপক।

[আরও পড়ুন: হনুমানের জন্ম কোথায়, ধর্মসভায় সাধুদের মধ্যে লেগে গেল হাতাহাতি]

কলেজের মুখপাত্র জানিয়েছেন, ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার অভিযোগের পরেই গোটা ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। আপাতত এক মাসের ছুটিতে পাঠানো হয়েছে ওই অধ্যাপক এসআর খালিদকে। এদিকে এই ঘটনায় কুয়ার্সি থানায় একটি অভিযোগও দায়ের হয়েছে। যদিও পুলিশ জানিয়েছে, কলেজ কর্তৃপক্ষের তথ্যের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। শ্রী ভার্শনে কলেজের ছাত্র নেতা দীপক শর্মার বক্তব্য, “কলেজে ক্যাম্পাসে নমাজ পড়ে শান্তিপূর্ণ আবহাওয়া নষ্ট করার চেষ্টা করেছেন অধ্যাপক।এই ধরনের কাজ মেনে নেওয়া হবে না।”

প্রসঙ্গত, গত মার্চ মাসে মধ্যপ্রদেশের (Madhya Pradesh) একটি কলেজে হিজাব (Hijab) পরে নমাজ পড়া নিয়ে বিতর্ক হয়। একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল, যেখানে দেখা গিয়েছিল, হরিসিং গৌর সাগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (Dr Harisingh Gour Sagar University) এক ছাত্রী শ্রেণিকক্ষেই হিজাব পরে নমাজ পড়ছেন। এই ঘটনায় ওই মুসলিম ছাত্রীর বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ জানায় হিন্দুত্ববাদীরা। তাদের বক্তব্য ছিল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ধর্মীয় আচরণের জায়গা নয়, ছাত্রীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ

নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে





Source link